লিখুন, মোকাবেলা করুন

কোভিড-১৯ পরবর্তী সময়

আপনার প্রস্তাবনা নীতিনির্ধারকদেরকে জানিয়ে দিন

করোনা পরিস্থিতি থেকে বাংলাদেশের উত্তরণ পরিকল্পনায় অংশগ্রহণ করুন

আপনার ব্যতিক্রমধর্মী চিন্তার জন্য পুরস্কৃত হোন

জাতীয় লেখা প্রতিযোগিতা

“করোনা পরবর্তী সম্ভাব্য মন্দা মোকাবেলায় করণীয় : তরুণদের ভাবনা”

কোভিড-১৯ মহামারীর সুদূরপ্রসারী প্রভাবে বাংলাদেশের লাখ লাখ মানুষের জীবন ও জীবিকা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। পরিস্থিতির জটিলতা বিবেচনায় এ অবস্থা থেকে বাংলাদেশের উত্তরণ প্রক্রিয়ায় সকলের অংশহগ্রহণ আবশ্যিক। বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মকে এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করতে হবে, কারণ এই পরিস্থিতির দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব তরুণ প্রজন্মের উপরই পড়বে। 

এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে আপনি আওয়াজ তুলতে পারবেন, নিজের চিন্তা শেয়ার করতে পারবেন, পারবেন আপনার পরামর্শ নীতিনির্ধারকদের নিকট পৌছাতে। 

অংশগ্রহণ করুন, এবং করোনা পরবর্তী বাংলাদেশের সম্ভাব্য মন্দা মোকাবেলায় আপনিও একজন অংশীদার হোন!

নির্বাচিত সুপারিশসমূহ ডাউনলোড করুন →

কে অংশগ্রহণ করতে পারবে?

বাংলাদেশ বা বিদেশে অবস্থানরত ১৮ – ৩৫ বছর বয়সী বাংলাদেশী তরুণ-তরুণীরা এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবে 

পুরস্কার

চ্যাম্পিয়ন

  • সকল গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন আইপিডিসির পক্ষ থেকে ১০,০০০ টাকা রিসার্চ গ্রান্ট পাবে।
  • সকল গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ সরকারের বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ে ইন্টার্নশিপ করার সুযোগ পাবে।

১ম ও দ্বিতীয় রানার-আপ

  • সকল গ্রুপের প্রথম ও দ্বিতীয় রানার আপগণ ব্রিটিশ কাউন্সিলের লাইব্রেরিতে এক বছরের ফ্রি সদস্যতা পাবে।

সার্টিফিকেট

  • প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সকলেই ই-সার্টিফিকেট পাবে, যা আয়োজনকারী প্রতিষ্ঠান সমূহের পক্ষ থেকে প্রদান করা হবে।

গুরুত্বপূর্ণ তারিখসমূহ

  • জমাদান শুরু

    মে ৭, ২০২০

  • জমাদান শেষ

    মে ৩১, ২০২০

  • যাচাই-বাছাই

    জুন ১-১৫, ২০২০

  • চুড়ান্ত ফলাফল

    জুন ২০, ২০২০

লেখার বিষয়াবলি/ক্যাটাগরি

  • প্রবাসী শ্রমিকদের সুরক্ষা ও রেমিট্যান্সের ধারাবাহিকতা রক্ষা
  • তরুণদের চাকরির ব্যবস্থা এবং নতুন কর্মক্ষেত্র তৈরি
  • ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে (এসএমই) সহায়তা
  • কর্মক্ষেত্রে নারীর নিরাপত্তা ও ক্ষমতায়ন
  • প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সুরক্ষা
  • টেকসই কৃষিব্যবস্থার নিশ্চয়তা
  • শিক্ষা ও ডিজিটাল শিখনপদ্ধতিকে উৎসাহিতকরণ
  • স্বাস্থ্যখাতকে শক্তিশালীকরণ
  • সামাজিক সুরক্ষা প্রোগ্রামসমূহকে এগিয়ে নেওয়া
  • রপ্তানি খাতকে পুনরুজ্জীবিতকরণ

জমাদানের প্রক্রিয়া

  • দিকনির্দেশনা পড়ুন

    সাবমিশন ফর্মে বিস্তারিত দিকনির্দেশনা রয়েছে। অনুগ্রহপূর্বক সেগুলো বিস্তারিত পড়ুন।

  • ব্যক্তিগত তথ্য পূরণ করুন

    অনুগ্রহপূর্বক ফর্মে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্যসমূহ পূরণ করুন, যাতে আমরা আপনার সাথে পরবর্তীতে যোগাযোগ করতে পারি।

  • বৈধ পরিচয়পত্র আপলোড করুন

    এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণে উপযুক্ততার প্রমাণস্বরূপ আপনার বৈধ পরিচয়পত্র আপলোড করুন।

  • প্রবন্ধ সংযুক্ত করুন

    আপনার লেখা প্রবন্ধটি ডক/পিডিএফ আকারে আপলোড করুন। প্রবন্ধের বিষয় এবং আপনার সাথে যোগাযোগের তথ্যাবলীও উক্ত ডক/পিডিএফ ফাইলে উল্লেখ করতে হবে।

  • সাবমিট বাটন চাপুন

    যেহেতু সাবমিট করার পর কোন কিছু সংশোধন করতে পারবেন না, তাই সাবমিট করার পূর্বে সবকিছু আবার দেখে নিন।

জমাদানের অংশ হিসেবে আপনার প্রবন্ধ এবং পরিচয়পত্র আপলোড করতে হবে। এই ফাইলগুলো আয়োজক কর্তৃক পর্যালোচনার সুবিধার্থে গুগল ক্লাউডে সংরক্ষিত থাকবে। তাই, লেখা জমা দেওয়ার আগে অবশ্যই আপনার গুগল অ্যাকাউন্টে সাইন ইন করতে হবে।

দেশের দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া এবং সুপার সাইক্লোন আম্পানের কারণে, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে, বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সাইক্লোনে বিধ্বস্ত অনেক এলাকা। এমতাবস্থায়, National Writing Competition: Write To Fight Post COVID-19 Era তে অংশগ্রহনেচ্ছুক তরুণদের অনুরোধে প্রস্তাবনা জমা দেওয়া সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে ৩১ মে, ২০২০ পর্যন্ত।

জমাদানের শেষ সময় মে ৩১, ২০২০, রাত ১১:৫৯
(বাংলাদেশ সময়)

প্রায়শই জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন

আপনার যদি এমন কোন প্রশ্ন থাকে, যা প্রাজিপ্রতে উল্লেখ করা হয়নি, তাহলে অনুগ্রহপূর্বক আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। program@youthop.com এই ঠিকানায় যোগাযোগ করতে পারবেন। ইমেইলের সাবজেক্ট লাইনে “Queries: Write2Fight” উল্লেখ করুন। 

অংশগ্রহণকারীদেরকে অবশ্যই তাদের প্রবন্ধে নির্ধারিত দশটি বিষয়ের যে কোন বিষয়ে প্রমাণসহ যৌক্তিক এবং বাস্তবায়ন উপযোগী নীতিনির্ধারণী পরামর্শ প্রদান করতে হবে।

আপনি আপনার প্রবন্ধে বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করতে পারেন, তবে অবশ্যই লেখাটি উল্লিখিত কোন বিষয়ের আওতাভুক্ত হতে হবে।

  • প্রবাসী শ্রমিকদের সুরক্ষা ও রেমিট্যান্সের ধারাবাহিকতা রক্ষা
  • তরুণদের চাকরির ব্যবস্থা এবং নতুন কর্মক্ষেত্র তৈরি
  • ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে (এসএমই) সহায়তা
  • কর্মক্ষেত্রে নারীর নিরাপত্তা ও ক্ষমতায়ন
  • প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সুরক্ষা
  • টেকসই কৃষিব্যবস্থার নিশ্চয়তা
  • শিক্ষা ও ডিজিটাল শিখনপদ্ধতিকে উৎসাহিতকরণ
  • স্বাস্থ্যখাতকে শক্তিশালীকরণ
  • সামাজিক সুরক্ষা প্রোগ্রামসমূহকে এগিয়ে নেওয়া
  • রফতানি খাতকে পুনরুজ্জীবিতকরণ

আপনার লেখাটি অবশ্যই সংক্ষিপ্ত প্রবন্ধ আকারে হতে হবে। প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে বুলেট পয়েন্ট ব্যবহার করলেও পুরো লেখাটি প্রবন্ধের কাঠামো অনুসারে হতে হবে।

প্রবন্ধের শব্দসংখ্যা ৭০০ থেকে ১,০০০ এর মধ্যে হওয়া বাঞ্ছনীয়।

বাংলা কিংবা ইংরেজিতে প্রবন্ধ লেখা যাবে।

একজন অংশগ্রহণকারী একাধিক লেখা জমা দিতে পারবেন। তবে প্রত্যেকটি লেখা আলাদাভাবে জমা দিতে হবে।

প্রতিটি লেখা অবশ্যই কুম্ভিলকমুক্ত এবং জমাদানকারীর নিজের লেখা হতে হবে।

অ্যাকাডেমিক রেফারেন্সিং পদ্ধতি অনুসরণ বাধ্যতামূলক নয়, তবে কোন লেখক অথবা গবেষকের লেখা কিংবা ধারণা আপনার প্রবন্ধে ব্যবহার করলে তা স্পষ্টভাবে উল্লেখ করতে হবে।

প্রতিটি প্রবন্ধ একজন লেখক কর্তৃক লিখিত হতে হবে। একাধিক লেখকের লেখা প্রবন্ধ গ্রহণযোগ্য নয়।

উপরে বিস্তারিত বর্ণনা করা হয়েছে, অনুগ্রহপূর্বক সেগুলো দেখে নিন।

পরামর্শসমূহের সংক্ষিপ্তসার বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এবং সংশ্লিষ্ট দপ্তরসমূহে বিবেচনার জন্য পাঠানো হবে

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য আপনার প্রবন্ধ ও পরিচয়পত্র আপলোড করতে হবে। এ দুটি ফাইল আয়োজক কর্তৃক পর্যালোচনার সুবিধার্থে গুগল ক্লাউডে সংরক্ষিত থাকবে। এ জন্য লেখা জমাদানের সময় আপনার গুগল অ্যাকাউন্টে সাইন ইন করতে হবে।

আপডেটের জন্য আমাদের ফেসবুক ইভেন্ট পেইজ ফলো করুন।

আয়োজনে

সহায়তায়